সাইনোসাইটিস কি? সাইনোসাইটিস হওয়ার কারণ ও লক্ষণ

সাইনোসাইটিস হল সাইনাসের আস্তরণের টিস্যুর প্রদাহ বা ফোলা, যা আপনার গালের হাড়, কপাল, নাক এবং আপনার চোখের মাঝখানে অবস্থিত বাতাসে ভরা গহ্বর।  এটি তীব্র (স্বল্পমেয়াদী) বা দীর্ঘস্থায়ী (১২ সপ্তাহের বেশি স্থায়ী) হতে পারে।  এখানে কিছু সাধারণ কারণ এবং লক্ষণ রয়েছে:


সাইনোসাইটিস হওয়ার কারণ:


ভাইরাল সংক্রমণ:

প্রায়শই একটি ভাইরাল সংক্রমণ হিসাবে শুরু হয়, যেমন সাধারণ সর্দি।


ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ:

ভাইরাল সংক্রমণের উন্নতি না হলে বা অন্য কারণে হতে পারে।


অ্যালার্জি:

অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া দীর্ঘস্থায়ী সাইনোসাইটিস হতে পারে।


অনুনাসিক পলিপস:

অনুনাসিক প্যাসেজে ছোট বৃদ্ধি।


বিচ্যুত সেপ্টাম:

একটি আঁকাবাঁকা অনুনাসিক সেপ্টাম সাইনাস নিষ্কাশন ব্লক করতে পারে।



সাইনোসাইটিস হওয়ার লক্ষণ:


মুখের ব্যথা/চাপ:

প্রায়ই চোখের চারপাশে, কপাল বা গালে।


নাক বন্ধ:

নাক দিয়ে শ্বাস নিতে অসুবিধা।


সর্দি বা ঘন বর্ণহীন অনুনাসিক স্রাব:

সবুজ বা হলুদ হতে পারে।


কাশি:

বিশেষ করে রাতে।


গলা ব্যথা:

অনুনাসিক ড্রিপের কারণে।


ক্লান্তি:

সাধারণত অসুস্থ বোধ করা।


গন্ধ এবং স্বাদের সংবেদন:

সাইনোসাইটিসের সাথে সাধারণ।


জ্বর:

কখনও কখনও তীব্র সাইনোসাইটিস হয়।


চিকিৎসার মধ্যে বিশ্রাম, হাইড্রেশন, ডিকনজেস্ট্যান্ট, নাকের কর্টিকোস্টেরয়েড এবং ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে।  দীর্ঘস্থায়ী সাইনোসাইটিসের জন্য আরও বিশেষ চিকিৎসা বা অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হতে পারে।  সঠিক রোগ নির্ণয় এবং নির্দেশনার জন্য সর্বদা একজন স্বাস্থ্যসেবা পেশাদারের সাথে পরামর্শ করুন।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ