কাশি কি এবং কেন হয়?

কাশি হল শরীরের একটি প্রতিবর্ত ক্রিয়া যা জ্বালা, শ্লেষ্মা বা বিদেশী পদার্থের শ্বাসনালী পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। এটি একটি প্রাকৃতিক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা যা শ্বসনতন্ত্র বায়ুপথগুলিকে পরিষ্কার এবং সঠিকভাবে কাজ করার জন্য নিযুক্ত করে। কাশিতে বুক, গলা এবং ডায়াফ্রাম সহ বিভিন্ন পেশীগুলির সমন্বিত প্রচেষ্টা জড়িত।


কাশি হওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে:

জ্বালা:

গলা, ফুসফুস এবং ব্রঙ্কিয়াল টিউব সহ শ্বাসযন্ত্রের ট্র্যাক্ট যখন ধূলিকণা, ধোঁয়া, দূষণকারী বা অ্যালার্জেনের মতো কণা দ্বারা বিরক্ত হয়, তখন শরীর এই বিরক্তিকরগুলিকে বের করে দিতে এবং তাদের আরও ক্ষতির কারণ হতে বাধা দেওয়ার জন্য কাশি শুরু করে প্রতিক্রিয়া জানায়। .


সংক্রমণ:

কাশি হল শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণের একটি সাধারণ লক্ষণ, যেমন সর্দি, ফ্লু, ব্রঙ্কাইটিস বা নিউমোনিয়া। এটি শরীরকে অতিরিক্ত শ্লেষ্মা এবং কফ পরিষ্কার করতে সাহায্য করে যা সংক্রমণের কারণে শ্বাসনালীতে জমা হতে পারে।


অ্যালার্জি:

পরাগ, পোষা প্রাণীর খুশকি বা কিছু খাবারের মতো পদার্থের অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়ার ফলে শরীর অ্যালার্জেন থেকে মুক্তি পাওয়ার চেষ্টা করে বলে কাশি হতে পারে।


গ্যাস্ট্রোইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ (GERD):

খাদ্যনালী এবং গলায় পেটের অ্যাসিড রিফ্লাক্সিং জ্বালা সৃষ্টি করতে পারে এবং কাশি শুরু করতে পারে।


পোস্টনাসাল ড্রিপ:

সাইনোসাইটিসের মতো অবস্থার কারণে অতিরিক্ত শ্লেষ্মা তৈরির ফলে গলার পিছনে শ্লেষ্মা ফোঁটা ফোঁটা হতে পারে, যার ফলে জ্বালা এবং ক্রমাগত কাশি হতে পারে।



হাঁপানি:

হাঁপানিতে শ্বাসনালীতে প্রদাহ এবং সংকীর্ণতা জড়িত, যার ফলে শরীর বাতাসের পথ পরিষ্কার করার চেষ্টা করে বলে কাশি হয়।


ফুসফুসের অবস্থা:

ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি) বা ফুসফুসের সংক্রমণের মতো দীর্ঘস্থায়ী অবস্থার কারণে ক্রমাগত কাশি হতে পারে।


ঔষুধ:

কিছু ঔষুধ, বিশেষ করে যেগুলি শ্বাসযন্ত্রকে প্রভাবিত করে, পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসাবে কাশি হতে পারে।


ধূমপান:

ধূমপান শ্বাসযন্ত্রকে বিরক্ত করে এবং দীর্ঘস্থায়ী কাশি হতে পারে, যাকে প্রায়ই "ধূমপায়ীর কাশি" বলা হয়।


এটি লক্ষ করা গুরুত্বপূর্ণ যে কাশি একটি প্রতিরক্ষামূলক প্রক্রিয়া হলেও, ক্রমাগত বা গুরুতর কাশি একটি অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্য সমস্যার লক্ষণ হতে পারে এবং এটি একজন স্বাস্থ্যসেবা পেশাদার দ্বারা মূল্যায়ন করা উচিত। কিছু ক্ষেত্রে, একটি দীর্ঘস্থায়ী কাশি আরও গুরুতর অবস্থার লক্ষণ হতে পারে এবং চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ